সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২০ ৬:৩২ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রাম লায়ন্স ক্লাব লামা-আলীকদমের ২৪ জন চক্ষু রোগির বিনামূল্যে অপারেশন-লেন্স স্থাপন করেছেন

শেয়ার করুন

লামা-আলীকদম (বান্দরবান)
লামা-আলীকদমে বিনামূল্যে ২৪জন দরিদ্র মানুষের চক্ষু অপারেশন-লেন্স স্থাপন করেছেন চট্টগ্রাম লায়ন্স ক্লাব। এর আগে ৯ নভেম্বর বিনা খরচে চক্ষু-ডায়াবেটিস ও হার্টের চিকিৎসা, ওষুধ চোখের চশমা প্রধান করা হয়। চট্টগ্রাম লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং এ্যাঞ্জেল, লায়ন্স ক্লাবসহ সহযোগি লায়ন্স ক্লাব এর অন্যান্য সংগঠনের সহযোগিতায়, আলীকদম জোনের সার্বিক তত্বাবধানে ছয় শ্ মানুষকে এই সেবা দেয়া হয়।
৯ নভেম্বর ৭৯ জনের চোখ অপারেশন করে লেন্স স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেন সংশ্লিষ্টরা। সেই ধারাবাহিকতায় প্রথম ধাপে ৩০ ডিসেম্বর ৩২ জন পাহাড়ী-বাঙ্গালী নারী-পুরুষকে চক্ষু অপারেশনের জন্য চট্টগ্রামস্থ লায়ন্স ধাতব চক্ষু হাসপাতালে ভর্ত্তি করা হয়। বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষার পর ৩১ ডিসেম্বর ও ২ জানুয়ারী মোট ২৪ জনের চোখে অপারেশনোত্তর লেন্স স্থাপন করা হয়। বাকীদের নানান জটিলতায় অপারেশন সম্ভব হয়নি, তবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
সূত্রে জানা যায়, লামা-আলীকদম থেকে আরো ৪০ জনকে পর্যায়ক্রমে চোখের অপারেশন করা হবে। বিনা মূল্যে চক্ষু পরীক্ষা, ওষুধ ও চশমা, অপারেশনোত্তর চোখে লেন্স বসানোর ফলে রোগিরা এখন স্বাভাবিক দৃষ্টি শক্তি ফিরে পেয়েছে। এই মহতি উদ্যোগে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন; সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন লামা ও বান্দরবান জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। জেলা গভর্ণর কামরুন মালেকসহ লায়ন্স ক্লাব চট্টগ্রাম সংশ্লিষ্ট সকল, আলীকদম জোন ও পাবলিক ডোনার প্রতিষ্ঠানের প্রতি স্থানীয়রা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।
এই মহতি কর্মে সার্বক্ষণিক যাঁরা মনিটরিং যোগাযোগ ও অনুপ্রেরণা যোগিয়েছেন, তাদের অন্যতম আলীকদম জোন কমান্ডার লে: কর্ণেল সাইফ শামীম পিএসসি। ছিলেন জাতীয় শ্যুটার কমনওয়েল্থ গেম্স-এ প্রথম স্বর্ণপদক প্রাপ্ত আতিকুর রহমান, উদ্যাক্তা সাইফুদ্দিন জালালী, লায়ন জোন চেয়ার পার্সন লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল চট্টগ্রাম এর লায়ন মো: আবদুল মান্নান, লায়ন ইঞ্জিনিয়ার মুজিবুর রহমান, লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, লামার কৃতি সন্তান চট্টগ্রামস্থ বাইজিদ এ কর্মরত এসআই মো: আরিফুল ইসলাম, লামা প্রেসক্লাব সেক্রেটারী-সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন লামা শাখার সভাপতি মো.কামরুজ্জামান, তার সহধর্মিনী মানবাধিকার কর্মি নাসিমা আক্তার। স্থানীয় উদ্যাক্তা মো: খলিলুর রহমান, মাসিনু মার্মা প্রমূখ।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *