সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০ ৩:৪১ পূর্বাহ্ণ

আনোয়ারা দক্ষিণ পরুয়া পাড়ায় প্রতিপক্ষের হুমকিতে পালিয়ে বেড়াচ্ছে ৩ সহোদর

শেয়ার করুন

আনোয়ারা প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার ৩ নং রায়পুর ইউনিয়নের দক্ষিণ পরুয়া পাড়ার ময়না বাপের বাড়িতে জায়গা-জমির বিরোধ নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আবুল কালামের ঘরে দেশিয় অস্ত্র দিয়ে সন্ত্রাসি হামলা চালিয়ে ঘরবাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট করে একই এলাকার আবদুল মান্নান ও তার সাঙ্গু-পাঙ্গুরা। গত (১৪ মে) বৃহস্পতিবার, বিকাল ৫.৩০ টা দিকে ইফতারের পূর্ব মুহুর্তে আবদুল মান্নান তার দলবল নিয়ে,লাঠি,চুরি,দা,বটি নিয়ে মৃত আবুল কালামের ঘরে হামলা চালিয়ে ঘরের আসবাবপত্র, দরজা, টিনের দেওয়াল ভাংচুর করে ঘরে থাকা জায়গার দলিল ও আলমারিতে থাকা( ৩০,০০০) ত্রিশ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় ।এ সময়, ঘরে অবস্হারত আবুল কালামের স্ত্রী আরফা খাতুন, নুরজাহান, আনোয়ারা বেগম আহত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী,নুর জাহান জানান, আমরা ইফতার তৈরি নিয়ে ঘরে ব্যস্ত ছিলাম।হঠাৎ একদল লোক লাটি-সোঠা ও চুরি নিয়ে ঘরে ভাংচুর করে,আমাদের আহত করে ঘর থেকে বের করে দেয়। স্হানীয় ব্যবসায়ী জানে আলম জানান,আবদুল মান্নান ও ইউসুফ চুরি নিয়ে আবুল কালামের ছেলে শফিককে তাড়া করে।এ সময় শফিক পালিয়ে প্রাণে রক্ষা পায়।

জানা যায়,বাড়ির পাশের ১০ শতক জায়গা নিয়ে দু’পক্ষের দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল।আবুল কালামের ৫শতক জায়গা আবদুল মান্নানের কাছে ও আবদুল মান্নানের ৫শতক জায়গা আবুল কালামের কাছে রিয়াজ বদল চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।রিয়াজ বদল চুক্তি চূড়ান্তভাবে রেজিস্টার না করে গত ২১ মার্চ আবদুল মান্নান দেওয়াল দিতে গেলে আবুল কালামের পরিবার বাধাঁ দেয়।দেওয়াল দিতে না পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে আবুল কালামের ছেলে রফিক,শফিক ও তৌহিদকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকে এক পর্যায়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গতকাল আবুল কালামের পরিবারের উপর হামলা চালায়।আবদুল মান্নান গংরা আবুল কালামের তিন ছেলে রফিক,শফিক তৌহিদকে ঘর ছাড়া করে।ঘরে ঢুকলে তাদের জানে মেরে ফেলার  হুমকি দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। এই ব্যাপারে স্হানীয় ইউপি সদস্য জানান, জায়গা নিয়ে বিরোধের জেরে এই ঘটনা ঘটে।আমি উভয় পক্ষকে নিয়ে সমাধানের চেস্টা করে ব্যর্থ হয়েছি।দুই পক্ষ থানায় মামলা করেছে এটি থানা সমাধান করবে। এই ঘটনায় রফিক বাদি হয়ে আবদুল মান্নানকে প্রধান আসামি করে ইউসুফ,আরিফ,জিহান,রুশু আকতারসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আনোয়ারা উপজেলার এসআই মোহাম্মদ নয়ন এই ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেন।এতে দুই পক্ষ পাল্টা-পাল্টি থানায় অভিযোগ করেছে।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *