অক্টোবর ২১, ২০২০ ৩:৩৯ পূর্বাহ্ণ

মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়ির নামে ছড়ানো হচ্ছে গুজব

শেয়ার করুন

বন্দর থানা প্রতিনিধি

বিশ্ব আজ থমকে গিছে করোনার কাছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ গোটা বিশ্বে বেড়েই চলেছে। যার থাবা এসে পড়েছে বাংলাদেশেও।বাংলাদেশেও সংক্রমণ বাড়ছে। করোনায় মানুষ মানুষকে চিনতে সাহায্য করেছে। করোনা মানুষ একা বাচঁতে শিখিয়েছে।এই পরিস্থিতে প্রশাসন সব চেয়ে বেশি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সাধারণ মানুষের কাছে।তেমনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়িও। করোনা পরিস্থিতিতে সিএমপি কর্তৃক অসহায় দরিদ্র মানুষের রান্না করা খাবার, ত্রাণ সামগ্রী ডোর টু ডোর পৌছেঁ দিয়েছেন।সরকারী নির্দেশমতো বিকাল চার ৪টার মধ্যে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা সকল আদেশ পালন করার জন্য তৎপর ছিলেন সাব ইনস্পেক্টর নাছির উদ্দিন। এই পরিস্থিতিতে কিছু সংখ্যক মানুষ সুযোগ নিয়েছে তারা বিভিন্ন সময় থানার নামে বিভিন্ন স্থান থেকে টাকা নেওয়া এবং থানার নামে অপপ্রচার শুরু করেছেন। গত বছর সাব ইনস্পেক্টর নাছির উদ্দিন মধ্যম হালিশহর পুলিশ ফাঁড়িতে ইনর্চাজ হিসেবে যোগদান করেন তিনি তার সাথে কথা হলে তিনি জানান, তিনি যে স্থানে দায়িত্বরত রয়েছেন সেখানে মানুষের সংখ্যা বেশি যেখানে মানুষের সংখ্যা বেশি সেখানে সাধারণত অপরাধ বেশি হয় তাই আমাদের সব সময় প্রস্তুত থাকতে হয়।তিনি বলেন আমি এই ফাঁড়ি তে যোগদানের পরে এই এলাকার জুয়া,মাদক,পতিতালয় থেকে এই এলাকাকে মুক্ত করার জন্য পর্যাপ্ত কাজ করে যাচ্ছি এবং প্রায় বেশির ভাগ কাজে সফলতা পেয়েছি, বর্তমানে,আমি আমার এলাকাটি মাদক,জুয়া,পতিতালয়,সন্ত্রাস থেকে রক্ষা করতে পেরেছি আপনি দেখতে পাবেন বর্তমানে আমার এলাকায় প্রকাশে কোনো প্রকার জুয়া খেলা হয় না যদি কোথাও হয়ে থাকে তাহলে সাধারণ জনগণ বা অন্য কেউ আমাদের জানালে আমরা সাথে সাথে ব্যবস্থা নেবো। এ বিষয়ে এলাকার কিছু মানুষের সাথে কথা বললে তাদের মধ্যে হাসান নামের এক ব্যাক্তি আমাদের জানান, আগে আমাদের এলাকায় প্রকাশে জুয়া খেলতো বর্তমানে আমরা তা দেখছি না এবং আগে যেখানে সেখানে মাদক বিক্রয় হতো কিন্তু এখন আমরা তাদের দেখি না যারা মাদক বিক্রয় করতেন।তিনি আরো বলেন,বর্তমান ইনর্চাজ খুবই ভালো তাকে যখন যেকোন কাজে ফোন করলে তিনি সাথে সাথে ব্যবস্থা নেন।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *