ডিসেম্বর ১, ২০২০ ৫:৩০ পূর্বাহ্ণ

ত্যাগী ও ভোক্তা অধিকার সংগঠক খোরশেদ আলম সুজনকে চসিক প্রশাসক নিয়োগে অভিনন্দন 

শেয়ার করুন

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, ত্যাগী আওয়ামী নেতা ও চট্টগ্রামে ভোক্তা অধিকার আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক খোরশেদ আলম সুজনকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক নিয়োগ করায় মানীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে কৃতজ্ঞতা ও সুজনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম। একই সাথে ক্যাব চট্টগ্রাম আশা করে নবনিযুক্ত প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে নগরবাসীসহ সকল মহলের সার্বিক সহযোগিতায় একটি নাগরিক ও ভোক্তা বান্ধব আদর্শ নগরীতে পরিনত করতে সক্ষম হবেন।

শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০ ত্যাগী ও ভোক্তা অধিকার সংগঠক খোরশেদ আলম সুজনকে চসিক প্রশাসক নিয়োগে গণমাধ্যমে প্রেরিত অভিনন্দন বার্তায় ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন, ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারন সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, ক্যাব মহানগরের সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, সাধারণ সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, যুগ্ন সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম ও ক্যাব চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল মান্নান উপরোক্ত মতামত ব্যক্ত করেন।

অভিনন্দন বার্তায় ক্যাব নেতৃবৃন্দ আশা প্রকাশ করে বলেন, চট্টগ্রাম সিটিকরপোরেশন দেশের অন্যতম একটি প্রাচীন স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। এটি শুধু বাংলাদেশের নয়, পুরো দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ শহর। দেশের শিল্প, ব্যবসা, বানিজ্য, অর্থনীতি, বন্দরসহ নানা অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। আর প্রশাসক বা মেয়র যেই হোক তাকে সেখানে নেতৃত্ব প্রদানে সক্ষম হতে হবে। যিনি বর্তমান নয়, আগামি ১০০ বছরের পরিকল্পনা ও স্বপ্ন দেখাতে পারবেন। প্রশাসকের দক্ষতা শুধু কেন্দ্রিয় সরকারের সাথে দেনদরবার করে প্রকল্প বাস্তবায়ন নয়, প্রয়োজনে দেশীয় ও আর্ন্তজাতিক প্রতিষ্ঠানের সাথে দরকষাকষি করে চট্টগ্রামের উন্নয়ন স্বপ্ন বাস্তবায়নে সফল নেতৃত্ব প্রদান করা।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন দেশের রাজনীতিতে পরীক্ষিত নেতৃত্বের পরিবর্তে একটি সুবিধাবাদী গ্রুপ ক্ষমতার স্বাদ গ্রহন করে আসছিলো। ক্রমাগত ভাবে ব্যবসায়ী ও সুবিধাবাদীরা সরকার ও প্রশাসনের বিভিন্ন স্থান দখল করে রাজনীতিকে কুলষিত করে আসছিলো। সেধারায় খোরশেদ আলম সুজনের নিয়োগ দেশের রাজনীতিতে ত্যাগী ও জনসম্পৃক্ত নেতাদের মূল্যায়নের ধারা সুচিত হলো।

ক্যাব আশা করে খোরশেদ আলম সুজন দীর্ঘদিন যাবত চট্টগ্রামে ক্যাবের সাথে যুগপথ ভাবে ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার আন্দোলনে নেতৃত্ব প্রদান করেছেন। তাই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক হিসাবে দায়িত্ব পেয়ে ভোক্তা ও নাগরিক বান্ধব সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনে সক্ষম হবেন। ভোক্তা হিসাবে নগরের নাগরিকরা সিটিকরপোরেশনের অন্যতম স্টেক হোল্ডার হলেও প্রশাসন পরিচালনায় তাদের ভূমিকা নগন্য। বিষয়গুলি দূরীভুত করতে নগরীতে নিরাপদ ও ভেজালমুক্ত খাদ্য পণ্য নিশ্চিতে সিটিকর্পোরেশন এর আওতাধীন ১৭ টি বাজারগুলিকে নিয়মিত মনিটরিং জোরদার, নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় নাগরিক তদারকি ও নজরদারির আওতায় আনা। জলাবদ্ধতা নিরসন, নগরীতে যানজট নিরসন ও আধুনিক গণপরিবহন চালু। নগরীতে বাড়ীভাড়া বিঢম্বনার রোধে সিটিকর্পোরেশন এর কাউন্সিলরদের মাধ্যমে স্থানীয় ভাবে বাড়ী ভাড়া নিয়ে জঠিলতা নিরসনে সালিশী বোর্ড গঠন করা। হোল্ডিং ট্যাক্সের ভোগান্তি নিরসনে ত্রিপাক্ষিক গণশুনাণীর আয়োজন করা। নগরে সরকারী সেবাদানকারী সংস্থাগুলির স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতে তাদের জবাবদিহিতাকে নাগরিক পরীবিক্ষনের আওতায় আনা। ভোক্তা স্বার্থ ও নাগরিক স্বার্থ বিষয়ে সিটিকর্পোরেশন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নাগরিক, পেশাজীবি ও বুদ্ধিজীবিদের নিয়ে উপদেষ্ঠা পরিষদ গঠন। সিটিকর্পোরেশন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে নিয়মিত ভাবে স্থানীয় বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধি নিয়ে মতবিনিময় সভা আয়োজনে সক্ষম হবেন।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *