এপ্রিল ১২, ২০২১ ৬:৩৩ পূর্বাহ্ণ

‘ভালোবাসার গ্রুপ ০২/০৪’ এর উদ্যোগে “ওয়ার্ম লাভ” ইনভেন্ট’র শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন 

শেয়ার করুন

রানা সাত্তার
নিজের সন্তানকে কে না ভালোবাসেন। এই ভালোবাসার স্থান সবচেয়ে বেশি দখল করেছে নিজ সন্তান বা নিজের পরিবার। যেখানে বেশিরভাগ মানুষ কাটান নিজেদের নিয়েই।কিন্তু এই জীবিনের বাহিরেও যে মানুষের জীবন ও দায়িত্ব রয়েছে।আশা পাশে চলার পথে সুবিধাবঞ্চিত বাচ্চা বা মানুষদের প্রতিও আমাদের দায়িত্ব, কর্তব্য, ভালোবাসা রয়েছে।এটা তাদের অধিকারও।
এই ধারাবাহিকতায়, দেশসহ পুরো বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতে একটি ফেসবুক গ্রুপ খুলেছিলো এসএসসি ২০০২ ও এইচ এস সি-২০০৪ এর বন্ধুরা ।যা আজ ০২/০৪ নামে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিত।
 শুরুর দিকে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানের ছবি,বন্ধুদের ছবি,আড্ডার ছবি, ঐতিহ্যবাহী স্থান ইত্যাদি কথা ও লেখা শেয়ার করা হতো গ্রুপটিতে। এক সময় গ্রুপের সদস্য সংখ্যা বাড়তে থাকে। যাত্রা শুরুর কিছুদিন পর  থেকে একটি সংগঠনের আকারে গ্রুপটি সমাজ সেবামূলক কাজও  করা শুরু করে।যার প্রতিফলন হিসাবে আজ “ওয়ার্ম লাভ” প্রতিবছরই শীতের শুরুতে শীতবস্ত্র বিতড়ণ  আয়োজন করে থাকে গ্রুপটি। এর মধ্যে রয়েছে দুই ঈদে দরিদ্রদের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ, শীতবস্ত্র দান, রক্তদান,করোনাকালীন সময়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে প্রণোদনা পৌছিয়ে দেয়া, ইত্যাদি।
সম্প্রতি চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে নগর ফুল আয়োজিত ডবলমুরিং থানাধীন বিট-৭২ এর তত্বাবধান ও সার্বিক সহযোগিতায় নগর ফুল বিট স্কলের দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে ‘০২/০৪’ গ্রুপটি।
আমন্ত্রিত অতিথি, মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক মোঃ ডা.নুরুল হক বলেন, ‘সমাজের দরিদ্র মানুষগুলোর প্রতি আমাদের সবারই দায়বদ্ধতা আছে। আমরা সবাই যদি একটু একটু করে এগিয়ে আসি, তাহলে এই পথশিশু, শীতার্ত মানুষদের কষ্ট একটু হলেও কমানো সম্ভব। আসুন, আমরা সবাই একটু করে এগিয়ে আসি। আমরা ভালো থাকি, আশেপাশের মানুষও ভালো থাকুক। নিজেকে ভালোবাসুন, সকলকে ভালোবাসুন।’ সুবিধাবঞ্চিত সবার জন্য হাসপাতালে চিকিৎসার সুবিধা থাকবে বলে তিনি অঅঙ্গীকার করেন।
আমন্ত্রিত অতিথি পুলিশের এডিসি হুমায়ুন কবির সি,এম,পি(পশ্চিম) চট্টগ্রাম বলেন,পৃথিবীর সকল বাচ্চাই মেধাবী। স্থান বুঝে বিকশিত হওয়ার সুযোগ পায়।রাস্তায় থাকা শিশুদের মাঝেও মেধা রয়েছে।প্রখর মেধাবী বাচ্চাও আছে,আমাদের একটু সহযোগিতা ও সহানুভূতি পেলে এই পথ শিশু,সুবিধাবঞ্চিত বাচ্চাদের থেকেও ডা.,ইঞ্জিনিয়ার হওয়া সম্ভব। তাই তাদের সাথে সদয় আচরন করে যতটুকু সম্ভব তাদের পাশে থাকা আমাদের উচিত।এরাও একদিন দেশ চালাতে পারে বলে ব্যাক্ত করেন তিনি।
এ সময় ০২/০৪ এর এডমিন জয়নাল আবেদীন জয় বলেন, ‘আমাদের গ্রুপ কিংবা আমাদের মাধ্যমেই যে অসহায় মানুষদের সাহায্য করতে হবে তা নয়। যে যার অবস্থান থেকে যেভাবে পারে অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াক। আমরা এমন আয়োজন এজন্যই করি যেন অন্যরাও আমাদের দেখে সমাজ সেবামূলক কাজে উদ্বুদ্ধ হয়। আমরা চাই অন্যরাও যেন ভালো কাজে এগিয়ে আসে। যে যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসুক, সেটাই চাই আমরা।’
তিনি আরো বলেন,গ্রুপ ও গ্রুপের কার্যক্রম নিয়ে আমরা বন্ধুরা সমন্বিত হয়ে গ্রুপের কাজ করে থাকি। আজ আমরা  আগ্রাবাদে এই প্রোগ্রাম করা হয়েছে,প্রতিবছর এক এক জায়গায় সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে দাঁড়াতে চাই আমরা।
এসময় গ্রুপের সাথে আমন্ত্রিত অতিথির সাথে আরো উপস্থিত ছিলেন,  মাসুদ রানা পুলিশ পরিচালক(তদন্ত) ডবলমুরিং মডেল থানা,এস.আই অর্ণব বড়ুয়া (ইনচার্জ), আগ্রাবাদ পুলিশ ফাঁড়ি ও বিট-৭২,এ.এস.আই মিটু দাশ(সহ-ইনচার্জ), বিট নং-৭২,০২/০৪ গ্রুপের বন্ধু -বান্ধবসহ নগর ফুল  স্কুলের পরিচালনা পর্ষদ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *