মে ৯, ২০২১ ১১:২০ পূর্বাহ্ণ

ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে বিদ্রুপ করছে চীন

শেয়ার করুন

কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারত। স্বাস্থ্য ব্যবস্থা রীতিমতো ভেঙ্গে পড়েছে। প্রতিদিনই হাজারো মানুষের মৃত্যুতে ভারী হয়ে উঠেছে ভারতের আকাশ! উন্নত বিশ্বের প্রধান দেশগুলো ভারতের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসছে। এমন পরিস্থিতিতে ভারতের করোনা সঙ্কট মোকাবেলা করার ধরণ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য করলো চীনা কমিউনিস্ট পার্টির একটি অংশ।

গত ১ মে সামাজিক মাধ্যম ‘ওয়েইবো’তে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির ‘সেন্ট্রাল পলিটিক্যাল এন্ড লিগ্যাল এফেয়ার্স কমিশনে’র অ্যাকাউন্ট থেকে ভারত এবং চীনের দুটো ছবি একত্রে জুড়ে দিয়ে একটি পোস্ট করা হয়।

ছবি দুটোর একটিতে দেখা যাচ্ছে, চীনে একটি রকেট উৎক্ষেপণ করা হচ্ছে। আর পাশের ছবিতে দেখা গেছে ভারতে করোনা ভাইরাসে মারা যাওয়া মানুষের মরদেহ চিতায় দাহ করা হচ্ছে। আর ক্যাপশনে লিখা হয়, “চীনের জ্বালানো আগুন বনাম ভারতের জ্বালানো আগুন।”

এ নিয়ে রীতিমতো ঝড় উঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিতে। সমালোচনার বন্যা বয়ে যায় ওয়েইবো’ জুড়ে। এর প্রেক্ষিতে মাত্র ৫ ঘন্টা পরই পোস্টখানা সরিয়ে ফেলে কমিউনিস্ট পার্টির একাউন্টটি।

তবে তাতেও বিতর্ক থেমে থাকেনি। পোস্টের পক্ষে-বিপক্ষে অসংখ্য মন্তব্যে ছেয়ে যায় গোটা ওয়েইবো। তবে ভারতের সঙ্কট মুহূর্তে এমন রূঢ় এবং অসংলগ্ন আচরণ করায় বেশিরভাগ নেটাগরিকই কাঠগড়ায় দাড় করাচ্ছেন চীনকে।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক বছর গুলোয় সীমান্তে চীনের সঙ্গে রীতিমতো উত্তেজনা দেখা দেয় ভারতের। বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল রাষ্ট্র দুটোর মধ্যে তীব্র প্রতিযোগিতা বিদ্যমান।

প্রসঙ্গত, বিশ্বে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের নতুন কেন্দ্র হয়ে উঠেছে ভারত। প্রতিদিনই করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড তৈরী হচ্ছে সেখানে। সাম্প্রতিক তথ্য বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ভারতে করোনায় গড়ে দৈনিক তিন লক্ষাধিক মানুষ আক্রান্ত এবং প্রায় তিন হাজার মানুষ মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছেন। ভেঙ্গে পড়েছে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। চারিদিকে বিরাজ করছে থমথমে পরিস্থিতি। তুলনায়, চীনে গতকাল নতুন আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ১১ জন।

এদিকে, ভারতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত সান ওয়েডং চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, “সাম্প্রতিক মাসগুলোয় চীন ভারতকে ৫ হাজারেরও বেশি ভেন্টিলেটর এবং ২১,৫৬৯ টি অক্সিজেন উৎপাদক সরবরাহ করেছে।”

পাশাপাশি ভারতের অর্ডার করা কমপক্ষে চল্লিশ হাজার অক্সিজেন জেনারেটর দ্রুতই সরবরাহ করতে চীনা কোম্পানী গুলো কাজ করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *