অক্টোবর ১৯, ২০২১ ৬:৫৯ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জের ৫৩জন শ্রমিক নিহতের ঘটনায় দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার দাবি

শেয়ার করুন

আজ  ৯ জুলাই ২০২১ শুক্রবার ন্যাশনাল ওয়ার্কার্স ইননিটি সেন্টারের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সুলতানা বেগম ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইলিয়াস সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশের জন্য প্রেরিত বিবৃতিতে বলেন  হাসেম ফুড এন্ড বেভারেজের মালিকানাধিন সেজান জুস কারখানার অগ্নিকান্ডে ৫২ জন শ্রমিক নিহতের ঘটনায় দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার,নিহত শ্রমিকের প্রকৃত সংখ্যা প্রকাশ করা, নিহত ও নিখোঁজ শ্রমিকদের আই.এল.ও কনভেনশন ১২১ অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ এবং আহত-ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের জন্য জরুরী সহায়তা, বিনামূল্যে চিকিৎসা এবং যথাযথ ক্ষতিপুরণ দাবি করছি।
নেতৃবৃন্দ বলেন, নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ এলাকায় অবস্থিত হাসেম ফুড এন্ড বেভারেজের ৬ তলা কারখানা ভবনে উৎপাদনের কার্যক্রম চালু থাকা অবস্থায় গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। অগ্নিকান্ডের সময় ৬ হাজারের অধিক শ্রমিক কর্মরত ছিল। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে জানা যায় প্রাণ বাঁচাতে ভবনটি থেকে লাফিয়ে পড়েন শ্রমিক স্বপ্না রানী, মিনা আক্তার, মোরসালিন নামের তিনজন শ্রমিক ওই ভবনের তৃতীয় তলা থেকে লাফ দিয়ে নিহত হন। পরবর্তীতে অর্ধশতাধিক লাশ উদ্ধার হয়েছে। নেতৃবৃন্দ বলেন  বেশ কিছুদিন ধরেই বিভিন্ন শিল্প-কারখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটছে যার দায় কলকারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তর কোন ভাবেই এড়াতে পারেনা। এই অগ্নিকান্ডকে অব্যবস্থাপনার ফল হিসাবে উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন কারখানায় দাহ্য পদার্থের ব্যবস্থাপনা যথাযথ ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখতে হবে। শ্রম আইন বাস্তবায়ন এবং শ্রমিকের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ মালিকদের স্বার্থরক্ষাকারী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। যার ফলে স্পেকট্রাম, তাজরিন, রানাপ্লাজার মত ঘটনা ঘটার পরেও আজও শ্রমিকদের কর্মক্ষেত্র, চাকরি বা জীবনের ন্যূনতম নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়নি।
নেতৃবৃন্দ বলেন গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে কারখানার ছয়তলা ভবনের নিচতলা থেকে আগুনের সূত্রপাত। অগ্নিকান্ডে সময় ওই ৬তলা ভবনের ৪তলার শ্রমিকরা কেউ বের হতে পারেননি। প্রতিদিন ৪তলায় ৭০-৮০ জন শ্রমিক কাজ করতেন। চতুর্থ তলার শ্রমিকদের ইনচার্জ মাহবুব, সুফিয়া, তাকিয়া, আমেনা, রাহিমা, রিপন, নাজমুল, মাহমুদ, ওমরিতা, তাছলিমাসহ অসংখ্য শ্রমিকের নিখোজ। নিখোঁজ স্বজনদের আহাজারিতে চারপাশ ভারি হয়ে ওঠে। ভবনের পঞ্চম তলায় ছিল কেমিক্যালের গোডাউন। শুক্রবার সকালে আগুন নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি উদ্ধার কাজও চালায় ফায়ার সার্ভিস। ৬তলা ভবনের ৪তলা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ৫২টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে পুরো ভবনের উদ্ধার কাজ শেষে লাশের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *