সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১ ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

পতেঙ্গায় টিআই শহীদের যোগদানের পর পাল্টে গেল রাস্তার দৃশ্যপট

শেয়ার করুন

পতেঙ্গা প্রতিনিধি

পতেঙ্গা এলাকায় টিআই শহীদ যোগদানের পর যেন পাল্টে গেছে পতেঙ্গা এলাকার অলিগলি ও মহাসড়ক এর চিত্র এমনটাই যেন মনে করছেন পতেঙ্গার জনগণ। চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা এলাকায় এতদিন দাপিয়ে বেড়াচ্ছিল অবৈধ যানবাহন, তার মধ্যে  ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক, যার কোন ফিটনেস ট্যাক্স টোকেন ডকুমেন্ট বলতে কিছুই নেই, নেই চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্সও। এসব যানবাহনের এ কারণে প্রায়ই নানান ধরনের দুর্ঘটনা ঘটছে এখানে।

টিআই শহীদ আসার পর থেকে দেখা যাচ্ছে না অবৈধ গাড়ি এবং পাতি নেতাদের সিন্ডিকেট । এই কারণে অনেকেই দোকান ও  অলি গলিতে বসে বলাবলি করছে টিআই শহীদ যেন পতেঙ্গার জন্য রাস্তার রাজা।

আমাদের অনুসন্ধানে জানা গেছে, সড়ক-মহাসড়কে এসব যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের ছত্রছায়ায় ও কিছু অসৎ পুলিশকে ম্যানেজ করেই এইসব অবৈধ গাড়ি চালানো হয় ও স্থানীয় এলাকার একটি সিন্ডিকেট পুলিশের সাথে সখ্যতা ও সুসম্পর্ক তৈরি করে।
এর ফলে এই সব অবৈধ গাড়ি চলাচল দিন দিন বেড়েই চলছে।

এইসব কোনো কিছুই যেন তোয়াক্কা করছে না টিআই শহীদ, কথা একটাই আইন সবার জন্য সমান।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ট্রলি ও ইজি পাওয়ার চালক বলেন, মাসিক চুক্তিতে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকার বিনিময়ে মালিক সমিতির মাধ্যমে পুলিশকে আগে ম্যানেজ করা হতো,
এই কারণে অভিযান চললেও পরিচয় দিলে ছাড়াা পেতো অবৈধ চালকরা, মাঝেমধ্যে পুলিশের উপর মহলের চাপ আসলেও টেলিফোন করে অবৈধ গাড়ি চালকদের আগে থেকে সতর্ক করে দেয়া হতো।

চালকরা আরো বলেন, এসব অবৈধ হালকা যানবাহনের কারণে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয় অন্যান্য যানবাহনগুলোকেও।

এ বিষয়ে কথা হয় কাটগর এলাকার কিছু স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে। স্থানীয় বাসিন্দা ইসমাইল হোসেন নামের এক যুবক বলেন, এসব অবৈধ যানবাহনের চালকরা প্রশিক্ষিত না হওয়ায় ছোট-বড় দুর্ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটছে।এসব অবৈধ ছোট যানবাহনগুলো সড়কে ঝুঁকিপূর্ণ। এই যুবকের সাথে সহমত করে এলাকার আরো কিছু লোক বলেন,এইসব ছোট গাড়ি গুলোর থাকে না কোন লুকিং গ্লাস । এ কারণে পেছন থেকে হর্ণ দেওয়া হলেও তারা বুঝতে পারে না।আবার সড়কের যেখানে সেখানে দাঁড়িয়ে যায়, হঠাৎ করে ইউটার্ন নিয়ে বসে। এসব কারণে দুর্ঘটনা বেশি হয় এমনটাই বললেন পতেঙ্গার এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে কথা হয় পুলিশ পরিদর্শক টিআই শহীদ সাহেবের সাথে, তিনি বলেন আমি গাড়ি বন্ধ করার কেউ নই।এটা আমার কোন পার্সোনাল বিষয়ও না, সরকারি আইনে যা অবৈধ এটা সবাইকে মানতে হবে, অবৈধ কোন কিছুই চিরস্থায়ী হতে পারে না । তিনি আরো বলেন আমার পরিষ্কারকথা,আমার সামনে অবৈধ কিছুই হতে দেব না।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *